জিংক সিরাপ কেন খায় এবং এর উপকারিতা

জিংক সিরাপ কেন খায় এবং এর উপকারিতা

জিংক সিরাপ মানবদেহের জন্য খুবই কার্যকরী একটি ঔষধ। জিংক সিরাপ খেলে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় এবং আরো অনেক ধরনের উপকার সাধন হয়ে থাকে। আজকের পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে জানতে পারবেন জিংক সিরাপ কেন খায় এবং জিংক সিরাপ খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। যারা এই বিষয় সর্ম্পকে জানতে চান তারা অবশ্যই সম্পুর্ন পোস্ট টি মনোযোগ সহকারে বিস্তারিত পড়বেন। তাহলে চলুন দেরী না করে জেনে নেওয়া যাকঃ-



জিংক সিরাপ কেন খায় /জিংক সিরাপ এর উপকারিতা


আমাদের শরীরে যদি জিংকের ঘাটতি হয় তাহলে ক্ষুধামন্দা,তীব্র বৃদ্ধির হ্রাস, বিকৃত হাড় তৈরি, শ্বাসনালির সংক্রমণ, রক্তস্বল্পতা এবং রাতকানার মত সমস্যাগুলো হতে পারে। তাছাড়া শরীরে জিংকের ঘাটতি থাকলে অনেকেই মানসিক অশান্তিতে ভুগতে থাকেন বা অবসাদে ভোগে থাকেন। তাই সাধারণত এই রোগগুলো চিকিৎসায় জিংক সিরাপ ব্যবহার করা হয়ে থাকে। জিংক সিরাপ ব্যবহার করলে এই রোগগুলো থেকে খুব দ্রুতই মুক্তি পাওয়া যায় এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দ্রুত বৃদ্ধি পায়। 




জিংক সিরাপ খাওয়ার নিয়ম 



জিংক সিরাপ আমাদের শরীরের জন্য খুবই কার্যকরী একটি সিরাপ।এই সিরাপটি সাধারণত আমাদের শরীরে জিংকের ঘাটতি দূর করে থাকে। দুই থেকে পাঁচ মাস বয়সের শিশুদের ক্ষেত্রে ডায়রিয়া চিকিৎসার জন্য স্কয়ার জিংক ঔষধ ব্যবহার করা হয়। 


১০ কেজি ওজনের শিশুদের ক্ষেত্রে ৫ মিলি করে দৈনিক দুই চামচ জিংক সিরাপ খাওয়ানো হয়।১০ কেজি থেকে ৩০ কেজি পর্যন্ত শিশুদের ক্ষেত্রে ১০ মিলি করে দৈনিক দুই থেকে তিনবার এই সিরাপ খাওয়ানো হয়। ৩০ কেজি ওজনের ঊর্ধ্বে শিশুদের ক্ষেত্রে দৈনিক ২০ মিলি করে চার চামচ করে তিনবার খাওয়ানো হয়।আহারের এক ঘন্টা পূর্বে অথবা দুই ঘন্টা পূর্বে এই ঔষধটি খাওয়ানোর জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। 



জিংক সিরাপ কি কাজ করে/জিংক সিরাপ খেলে কি হয় 


আশাকরি এতক্ষণে আপনারা জিংক সিরাপ খেলে কি কাজ করে বা জিংক সিরাপ খেলে কি হয় এই সম্পর্কে সঠিক ধারণা পেয়েছেন। তবে আপনি যে রোগের জন্যই আপনার শিশুকে জিংক সিরাপ খাওয়ার না কেন অবশ্যই একজন ভালো বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ খাওয়ানো উচিত। এতে করে শিশুর কোন ধরনের ক্ষতি হওয়ার কোন সম্ভাবনা থাকবে না। 



জিংক সিরাপ এর অপকারিতা


জিংক সিরাপ এর কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। নিয়মিত জিম সিরাপ খেলে আপনার এই সমস্যাগুলো হতে পারে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে বমি বমি ভাব, ডায়রিয়া, পেটে ব্যথা আরো কিছু সমস্যা জিংক সিরাপ খাওয়ার ফলে হতে পারে। তাই অবশ্যই একজন ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী জিংক সিরাপ খেতে হবে। 




জিংক সিরাপ দাম 


জিংক সিরাপের দাম বা এই সিরাপ কত টাকায় কিনতে পাওয়া যায় সেই সম্পর্কে আপনাদের জানাটা জরুরী। জিংক সিরাপ এর মধ্যে অনেকগুলো ভাগ রয়েছে তবে বাজারে ভিটামিন বি জিংক সিরাপ ৮০ টাকায় কিনতে পাওয়া যায়। 




শেষ কথা, আশা করি আজকের পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে জিংক সিরাপ কেন খায় বা জিংক সিরাপ খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে আপনারা জানতে পেরেছেন।তার পরেও যদি এই বিষয় সর্ম্পকে কোন ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে আমাদেরকে সরাসরি কমেন্ট করে জানাতে পারেন। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন